শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
ইউক্রেনিয়ায় সৈন্যের গুলিতে ৪ সহকর্মী ও ১ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত রেকর্ড সংখ্যক ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়লো উত্তর কোরিয়া ভারতের দিল্লীতে ধর্ষিতার মুখে কালি মাখিয়ে হাঁটানো হল প্রকাশ্যে বিয়ানীবাজার থেকে লিবিয়ায় গিয়ে নিখোঁজ ২৪ যুবকের পরিবারে এখন চলছে মাতম তথ্যমন্ত্রী সিলেটে হযরত শাহজালাল ও শাহ পরান (রঃ) এর মাজার জিয়ারত নির্বাচন কমিশন আইন পাস এক অনন্য মাইল ফলক হিসেবে বিবেচিত হবে : সেতু মন্ত্রী চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য জমি অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে কোনো দুর্নীতি হয়নি : শিক্ষামন্ত্রী দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৫ জনের মৃত্যু জাতির পিতাকে হত্যার পর রাজনীতি নিষিদ্ধ সত্ত্বেও প্রতিবাদ করেছেন কবিরা : প্রধানমন্ত্রী ইথিক্যাল ড্রাগস লিমিটেডে ভূয়া সনদে চাকরি ড্রাগ লাইসেন্স ছাড়াই ফার্মেসী ও রোগী চিকিৎসা!

সাজ্জাদ সাজুর ফটোগ্রাফার হিসেবে পথচলা শুরু

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২২, ১০.৪৯ পিএম
  • ১৮ বার পঠিত

আল সামাদ রুবেলঃ সিলেটের মৌলভীবাজার এ জন্ম ১৯৯০ সালের ২০ আগষ্ট। গ্রাজুয়েশন করেছেন সিলেট থেকেই। বন্ধুদের সাথে শখের বসে ক্যামেরা কেনা ২০১২ সালে। তারপর ক্যামেরার ছবি তােলার হাতেখড়ি হয় ধ্রুব নামের কাছের এক বড় ভাই এর কাছে থেকে। তারপর থেকে শুরু হলাে স্ট্রীট ফটোগ্রাফি দিয়ে। রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে ঘুরে কোন এক সপ্নের টানে প্রতিদিন ঘন্টার পর ঘন্টা ছবি তুলতে শুরু করলাে। একদিন এক পরিচিত ভাই অনুরোধে বিয়েতে গিয়ে বেশ কিছু ছবি ফ্রেমবন্দী করলো। বিয়ের পর সেই বড় ভাই সাজুর হাতে কিছু টাকা সম্মানী হিসেবে দিলাে। তখন সপ্নবাজনেই তরুন খুব অবাক হয়ে যায়, সে ভাবে, বিয়ের ছবি তুলে টাকাও আয় করা যায়? এর পর ৪ বছর সিলেটের বিভিন্ন বিয়ের প্রােগ্রামে ছবি তুলে নিজেকে তৈরী করে অনেক কঠিন যাত্রাকে সহজ করে ধৈর্য্যের শত পরীক্ষা দিয়ে একজন ওয়েডিং ফটোগ্রাফার হিসেবে নিজেকে প্রস্তুত করে। এর পর ২০১৭ সালের অক্টোবর ঢাকায় এসে সাজু । ফেসবুকে একটা পেজ খােলে, নাম দেয় সাজ্জাদ। সাজু ফটোগ্রাফিঃ ওয়েডিং আর্কাইভস নামে। এবং ডিসেম্বর এর ২ তারিখ প্রথম ইভেন্টও কভার করে ফেলে। এরপর স্বপ্নের যাত্রা শুরু হয় একের পর এক ইভেন্ট কভার করা,প্রতিদিন নতুন নতুন দম্পতির ছবি তােলা, ধীরে ধীরে এই ছােট্ট ফেসবুক পেইজ পরিনত হয়। বাংলাদেশের একটা স্বনামধন্য ফটোগ্রাফি ফার্মে। এই ৪ বছরে প্রায় ১৭০০ এর বেশী ইভেন্ট কভার করে ফেলেছে এই ফটোগ্রাফি ফার্ম। ঢাকার রামপুরা ডি আইটি রােডে রয়েছে তাদের সুসজ্জিত অফিস। এবং ফটোগ্রাফার সিনেমাটোগ্রাফার-এডিটর ও ম্যানেজমেন্ট মিলিয়ে প্রায় ৫০ জন কাজ করছে এই ফার্মে। সাজ্জাদ সাজু বলেন, আমি মফস্বল থেকে বেড়ে উঠা ছেলে ঢাকায় এসে ফটোগ্রাফিকে আকড়ে ধরে নিজেকে পরিচিত করেছি লাখো মানুষের কাছে, আমি বিশ্বাস করি এই ওয়েডিং ফটোগ্রাফি পেশা যেমন সম্মানের তেমনি প্রতিভাবান ছেলে মেয়েদের প্রতিভা বিকাশের অনন্য জায়গা। সাজুর সপ্ন, দেশের গন্ডি পেড়িয়ে বিদেশের।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazsongbadsara1
© All rights reserved  2019 songbadsarakkhon
Theme Download From ThemesBazar.Com