শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:২৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
বাংলাদেশ পাকিস্তান সিরিজে টিকা দেয়ার সার্টিফিকেট দেখাতে হবে দর্শকদের বিশ্বের ৩০ দেশে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে দারুস সালাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নারায়ণগঞ্জ সিটিতে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী আগামী ১২ ডিসেম্বর পরীক্ষামূলকভাবে মেট্রোরেল চলাচল করবে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৫০তম বার্ষিকী হিসেবে ৬ ডিসেম্বর মৈত্রী দিবস হিসেবে উদযাপন আগামী কাল শনিবার জাতীয় বস্ত্র দিবস দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সংখ্যা বেড়েছে বিএনপি বাসে গাড়িতে মানুষের সম্পত্তিতে আগুন দেয়ার ও অগ্নিসন্ত্রাসের রাজনীতি করে : তথ্যমন্ত্রী ময়মনসিংহের নান্দাইলে ১১টি ইউনিয়নে বইছে ভোটের হাওয়া

হোয়ইটওয়াশ এড়াতে সিরিজের শেষ ম্যাচে জয় পেতে চায় টাইগাররা

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১, ৬.০৭ পিএম
  • ১৪ বার পঠিত

প্রথম দুই টি-টোয়েন্টি হেরে ইতোমধ্যেই পাকিস্তানের কাছে সিরিজ হাতছাড়া  করা  বাংলাদেশ  ক্রিকেট দল এখন হোয়াইটওয়াশের মুখে। নিজ মাঠে হোয়ইটওয়াশের লজ্জা এড়াতে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে জয় পেতে  টাইগাররা।
হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে আগামীকাল মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে দুপুর ২টায় পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। অন্য দিকে সর্বশেষ  বাংলাদেশ সফরে সিরিজ হারের  প্রতিশোধ হোয়াইটওয়াশ  দিয়ে  নিতে চায় সফরকারী পাকিস্তান।
সিরিজের প্রথম ম্যাচটি  ৪ উইকেটে পরাজিত হলেও  প্রতিন্দ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেট খেলেছে বাংলাদেশ। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে লড়াই করতে পারেনি টাইগাররা। ৮ উইকেটে ম্যাচ জিতে  সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে পাকিস্তান।  দ্বিতীয় ম্যাচে ফখর জামানের ৫১ বলে অপরাজিত ৫৭ রানের সুবাদে সহজ জয় পায় পাকিস্তান।
জয়ের ধারায়  ফিরতে  ব্যর্থ হলে  এই ফরম্যাটে ঘরের মাঠে একাধিক  ম্যাচ সিরিজে  প্রথমবারের মতো হোয়াইটওয়াশের লজ্জা পাবে বাংলাদেশ।
গেল এক মাসের মধ্যে টি-টোয়েন্টিতে টানা সাত ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। আর শেষ ১০ ম্যাচের আট ম্যাচে হারের লজ্জা রয়েছে টাইগারদের। যদিও এই ফরম্যাটে বাংলাদেশের তৃতীয় দীর্ঘতম হারের ধারা এটি। ২০০৭-২০১০ পর্যন্ত দীর্ঘতম টানা ১২ ম্যাচ হেরেছিলো বাংলাদেশ। আর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ  ২০১৬-১৭ সালে টানা আটটি ম্যাচ হেরেছিলো বাংলাদেশ। কাল যদি পাকিস্তানের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয় বাংলাদেশ, তবে যৌথভাবে নিজেদের  দ্বিতীয় সর্বোচ্চ টানা ম্যাচ হারবে  টাইগাররা।
এখন পর্যন্ত ১২২টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। এরমধ্যে ৪৩টিতে জয় ও ৭৭ ম্যাচে হারে টাইগাররা। আর ২টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজে বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং দুর্বলতা ছিল  চোখে পড়ার মত।
দুর্বল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমবারের মত  দু’টি সিরিজ জিতলেও বাংলাদেশের মাথাব্যথার কারন ছিলো ব্যাটিং।
এমনকি টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে ব্যাটিং ব্যর্থতা অব্যাহত ছিলো বাংলাদেশের। বাছাই পর্বে স্কটল্যান্ডের কাছে  পরাজয় দিয়ে  বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছিল বাংলাদেশ। তবে পরের দুই ম্যাচে বোলারদের পারফরমেন্সে ওমান ও পাপুয়া নিউ গিনিকে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে উঠে বাংলাদেশ। এরপর বাজে ব্যাটিংয়ের কারণে সুপার টুয়েলভে পাঁচ ম্যাচের সবক’টিতে হারে বাংলাদেশ।
পাকিস্তানের বিপক্ষে শেষ হওয়া প্রথম দুই ম্যাচে যথাক্রমে ৭ উইকেটে ১২৭ রান ও ৭ উইকেটে ১০৮ রান করেছিলো বাংলাদেশ। ব্যাটিং ব্যর্থতা অব্যাহত থাকলে ঘরের মাঠে এক ম্যাচের বেশি কোন সিরিজে প্রথমবারের মত হোয়াইটওয়াশ হবে বাংলাদেশ।
এমন অবস্থায় বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন হারের বৃত্ত থেকে বের হতে ব্যাটারদের জ¦লে উঠতে হবে।
দ্বিতীয় ম্যাচ শেষে মাহমুদুল্লাহ বলেন, ‘আমি মনে করি গত পাঁচ-ছয় মাস আমাদের বোলিং ইউনিট অসাধারণ করেছে।  পেস এবং স্পিন উভয় বিভাগই ভালো করেছে। তবে ব্যাটারদের জ¦লে উঠতে হবে।’
এই ফরম্যাটে বাংলাদেশের বিপক্ষে টানা চার ম্যাচ জিতেছে পাকিস্তান । সব মিলিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে ১৪ ম্যাচের মধ্যে ১২টিতে জয় পেয়েছে পাকিস্তান।
সদ্য শেষ হওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপের সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারে পাকিস্তান। সিরিজ শুরুর আগে বাবর জানিয়েছিলেন, বিশ^কাপের পারফরমেন্স, তাদের আত্মবিশ^াস বাড়িয়েছে। বাংলাদেশের মাটিতে সেই আত্মবিশ^াস ধরে রাখাই লক্ষ্য।
প্রথম দুই ম্যাচে, নিজেদের  পারফরমেন্স  অব্যাহত রেখেছে পাকিস্তান। এখন শেষ ম্যাচে জয়ী হয়ে  সিরিজ শেষ করার প্রত্যাশায় বাবর।
তিনি বলেন, ‘দলের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ছেলেরা ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখায় আমি খুশি। আমরা মাঝের ওভারগুলোতে ভালো বল করছি, ভালোভাবে শেষ করছি। আশা করি, আমরা এটি অব্যাহত রাখতে পারবো।’
বাংলাদেশ শেষ দুই ম্যাচে অপরিবর্তিত রেখেছিলো একাদশ। তবে শেষ ম্যাচে কিছুটা পরিবর্তন আসতে পারে। মুস্তাফিজুর রহমানের ইনজুরি থাকায়   শেষ ম্যাচে অনিশ্চিত তিনি।
বাংলাদেশ দল : মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), নাইম শেখ, নাজমুল হোসেন শান্ত, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, শেখ মাহেদি, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, মুস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, শামীম হোসেন, নাসুম আহমেদ, সাইফ হাসান, ইয়াসির আলি চৌধুরি, শহিদুল ইসলাম এবং আকবর আলী।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazsongbadsara1
© All rights reserved  2019 songbadsarakkhon
Theme Download From ThemesBazar.Com