সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
বিশ্বকাপের সুপার এইটের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ২১ রানে হারিয়েছে আফগানিস্তান সারাদেশে বিষধর সাপ রাসেলস ভাইপারের উপদ্রব স্বাস্থ্যকেন্দ্র অ্যান্টি-ভেনম মজুদের নির্দেশ পবিত্র হজ পালন শেষে গত বৃহস্পতিবার থেকে দেশে ফেরা শুরু করেছেন হাজিরা দেশের প্রতিটা অর্জনে আওয়ামী লীগের অবদান রয়েছে : প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ কোরিয়ায় যৌথ সামরিক মহড়ায় মার্কিন বিমানবাহী রণতরী সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে প্রতিহত করাই আওয়ামী লীগের আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ : সেতুমন্ত্রী সোনালী ব্যাংকের পরিচালক পদ থেকে এনবিআর সদস্য মতিউর অপসারিত আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন প্রধানমন্ত্রীর সালথায় বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস এর কমিটি গঠন ও যোগদান সভা অনুষ্ঠিত  কাউখালীতে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ

টিভি মিডিয়ার নান্দনিক উপস্থাপক তানিয়া আফরিন

  • আপডেট সময় রবিবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩, ২.১৭ পিএম
  • ১৪৭ বার পড়া হয়েছে

আল সামাদ রুবেলঃ উপস্থাপক এবং নিউজ রুম এডিটর হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা হয়। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে দীপ্ত টিভিতে উপস্থাপক হিসেবে কাজে যোগদান করে বর্তমানেও একই চ্যানেলে কর্মরত আছেন। পাশাপাশি ২০১৯ সাল থেকে দুইটা প্রোডাকশন হাউজঃ প্ল্যাটফর্ম মিডিয়া ও সাউন্ড প্রিন্টারে ভয়েজ আর্টিস্ট হিসেবে কাজ ক

রে আসছেন। এদের প্রযোজিত শেহেরজাদ ফরহাদ ও ব্লুহুয়েল-এস এ টিভিতে প্রচারিত হয়েছে এবং জান্নাত সিরিয়ালটি এশিয়ান টিভিতে প্রচারিত হয়েছে।

একজন উপস্থাপকের কিকি গুনাবলি থাকা প্রয়োজন? প্রশ্নের জবাবে আফরিন বলেন-একজন উপস্থাপকের অবশ্যই ভাষা জ্ঞান, শুদ্ধ উচ্চারণ সাবলীল ভাবে কথা বলা, স্পষ্ট বাচনভঙ্গী এবং গুছিয়ে কথা বলতে পারা সর্বপরি দর্শকদের হৃদয়ে নিজের একটি স্থায়ী অবস্থান তৈরি করার যোগ্যতা থাকতে হবে। টিভি মিডিয়ার দীর্ঘ সময় সংগ্রাম করে নিজের একটি অবস্থান তৈরী করেছেন, ভাবলে কেমন লাগে? প্রথমে কাজ করতে গিয়ে অনেক ভুল করতাম, আর এই ভুলগুলো থেকেই শিখেছি। যখন আমার কাজ গুলো প্রচার হয়, প্রচারের পর প্রশংসিত হয় তখন সত্যি ভিশন ভালো লাগে। একটা তৃপ্তির হাসি হাসতে পারি, এর ফলে আরো নতুন নতুন কাজ করার খুদা জাগে। আমি আমার যোগ্যতার প্রমান দিতে চাই, যাতে দর্শকদের হৃদয়ে নিজের একটি ছাপ রেখে যেতে পারি।

তানিয়া আফরিন ইতিমধ্যে তার কাজের জন্য সেরা উপস্থাপক হিসেবে সাকোঁ টেলিফিল্ম এ্যাওয়ার্ড, বন্ধন কালচারাল পুরস্কার, স্বদেশ মৃত্তিকা পুরস্কার ও সাউথ এশিয়ান বিজনেস এ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। তানিয়ার পিতা মৃত শামছুল হক ও মাতা রেজিয়া বেগম ছিলেন সাংস্কৃতিক অনুরাগী। তিনি অনার্স মাস্টার্স করেছেন সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ থেকে। তার আগে বাড্ডা আলাতুন্নেছা স্কুল ও ইস্পাহানী বালিকা বিদ্যালয় থেকে এইচ এস সি সম্পন্ন করেন। সিদ্ধেশ্বরী গার্লস স্কুলে পড়ার সময়ই আবৃত্তি চর্চা শুরু করেন। তানিয়া খুবই ফ্যাশনেবল, অনুষ্ঠান উপস্থপনায় শাড়ী পছন্দ, থ্রীপিচও পড়েন, ওয়ের্স্ট্রান ড্রেসও তার খুব পছন্দ। তার খেতে পছন্দ ফুসকা, পুদিনা পাতা ও মাল্টার চা তার পছন্দ। তার পছন্দের ফুল হলো বেলী ফুল, কালো ও বেগুনী তার পছন্দের রং। অবসর সময়ে তিনি বই পড়েন, গান শুনেন। ঘুরাঘুরিও তার পছন্দ, ভালো লাগে পাহাড়ী অঞ্চল, বৃষ্টির সময়, শিশির ভেজা কুয়াশাচ্ছন্ন সকাল ও শীতের সকালে ভাপা পিঠা খাওয়ার মূর্হুত।
সামাজিক দায়বদ্ধতার কথায় তিনি বলেনঃ ভবিষ্যতে দেশে সামাজিক কাজের প্রতি পরিকল্পনা রয়েছে। অসহায় নির্যাতিত, সুবিধা বঞ্চিত নারী ও পথ শিশুদের নিয়ে কাজ করতে চাই। তাদের পাশে থেকে সহযোগীতা করার ইচ্ছে রয়েছে।

মিডিয়ায় কাজের অনুভূতি সম্পর্কে তানিয়া বলেন- আমি উপস্থাপনা কাজটিকে খুব উপভোগ করি। এই পথ চলার জন্য আমার পরিবারের পক্ষ থেকে সার্পোট পেয়ে আসছি। ভাবলেই গর্ববোধ হয়, এই কাজটির সাথে আমি এক ধরনের মানসিক বন্ধন অনুভব করি। নতুন ধারায় নতুন নতুন বিষয় শেখার আগ্রহ সবসময় প্রত্যাশা করি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

themesbazsongbadsara1
© All rights reserved © 2022 songbadsarakkhon.com
Theme Download From ThemesBazar.Com