শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ১০:১৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
ইউক্রেনিয়ায় সৈন্যের গুলিতে ৪ সহকর্মী ও ১ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত রেকর্ড সংখ্যক ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়লো উত্তর কোরিয়া ভারতের দিল্লীতে ধর্ষিতার মুখে কালি মাখিয়ে হাঁটানো হল প্রকাশ্যে বিয়ানীবাজার থেকে লিবিয়ায় গিয়ে নিখোঁজ ২৪ যুবকের পরিবারে এখন চলছে মাতম তথ্যমন্ত্রী সিলেটে হযরত শাহজালাল ও শাহ পরান (রঃ) এর মাজার জিয়ারত নির্বাচন কমিশন আইন পাস এক অনন্য মাইল ফলক হিসেবে বিবেচিত হবে : সেতু মন্ত্রী চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য জমি অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে কোনো দুর্নীতি হয়নি : শিক্ষামন্ত্রী দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৫ জনের মৃত্যু জাতির পিতাকে হত্যার পর রাজনীতি নিষিদ্ধ সত্ত্বেও প্রতিবাদ করেছেন কবিরা : প্রধানমন্ত্রী ইথিক্যাল ড্রাগস লিমিটেডে ভূয়া সনদে চাকরি ড্রাগ লাইসেন্স ছাড়াই ফার্মেসী ও রোগী চিকিৎসা!

নিরাপত্তা ও অপরিচ্ছন্নতার দূর্বিপাকে জবির কেন্দ্রীয় ছাত্রী কমনরুম

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৫ জানুয়ারী, ২০২২, ৫.৩৯ পিএম
  • ৩৫ বার পঠিত

 হারুন, জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্রী কমনরুমের অবস্থান নতুন (বিবিএ) ভবনের নিচতলায়। যার একপাশ অবস্থিত সদরঘাটগামী রাস্তা। রাস্তার মুখোমুখি কমনরুমের একপাশে উন্মুক্ত করিডোর ও সিঁড়িতে বসে ছাত্রীদের অবসরের অধিকাংশ সময় পার হয়। তবে এখন যেন সেই অবসরের সময়টাই গুটিয়ে নিতে হচ্ছে ছাত্রীদেরকে। রুমের সামনে দেয়াল ঘেঁষে সদরঘাটগামী রাস্তার ফুটপাতে অংশটি যেন এখন হয়ে দাঁড়িয়েছে বখাটেদের আড্ডাখানা ও সাধারণের টয়লেট। যেখানে বসে ছাত্রীরা ক্লাসের ফাঁকে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে সেখানে তারা উত্তপ্ত হচ্ছে বখাটেদের শিশের আওয়াজে। এর কারণ পর্যবেক্ষণ করতে গিয়ে দেখা যায় কয়েক মাস আগে রাস্তা ও ড্রেনের সংস্কার কাজ হওয়ার পরে ফুটপাতের উচ্চতা অনেকটা বৃদ্ধি পায়। যার দরুন ফুটপাতে দাঁড়িয়ে দেয়ালের উপর দিয়ে কমনরুমের একাংশ দেখা যায়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী জানান যে, সিঁড়ির ঐ অংশ টায় অনেক ছাত্রীরাই বসে তাদের অবসর কাটায়। বই পড়ে। ক্যাম্পাসের এতো অধিক সংখ্যক ছাত্রীর তুলনায় কমন রুমের জায়গার পরিমাণ শোচনীয় হাওয়ায় ছাত্রীদেরকে সংকলিত জায়গার মধ্যেই তাদের অবসর কাটাতে হয়।কিন্তু এ অবস্থাতে যদি হেনস্তার শিকার হতে হয় তাহলে ক্যাম্পাসে ছাত্রীরা কতটুকু নিরাপদ তা অনেকাংশেই সন্দিহান। সেই শিক্ষার্থীর পাশাপাশি আরও কয়েকজন এই একই সুরে তাল মেলান। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল স্যার এর সাথে কথা বলতে গেলে তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয় প্রকৌশল দপ্তর থেকে মাস তিনেক আগেই এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিয়ে দেওয়াল উঁচু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ এখন পর্যন্ত নেওয়া হয় নি। পরবর্তীতে এ বিষয়টি নিয়ে ছাত্রকল্যাণের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আইনুল ইসলাম স্যার এর সাথে কথা বললে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশলী দপ্তরের কয়েকজন সহ স্থানটি পর্যবেক্ষণ করেন। এ সময়ে সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে স্থানটি সুরক্ষিত করার সিদ্ধান্ত হলেও এখনো কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয় নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazsongbadsara1
© All rights reserved  2019 songbadsarakkhon
Theme Download From ThemesBazar.Com