শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:০০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
বাংলাদেশ পাকিস্তান সিরিজে টিকা দেয়ার সার্টিফিকেট দেখাতে হবে দর্শকদের বিশ্বের ৩০ দেশে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে দারুস সালাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নারায়ণগঞ্জ সিটিতে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী আগামী ১২ ডিসেম্বর পরীক্ষামূলকভাবে মেট্রোরেল চলাচল করবে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৫০তম বার্ষিকী হিসেবে ৬ ডিসেম্বর মৈত্রী দিবস হিসেবে উদযাপন আগামী কাল শনিবার জাতীয় বস্ত্র দিবস দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সংখ্যা বেড়েছে বিএনপি বাসে গাড়িতে মানুষের সম্পত্তিতে আগুন দেয়ার ও অগ্নিসন্ত্রাসের রাজনীতি করে : তথ্যমন্ত্রী ময়মনসিংহের নান্দাইলে ১১টি ইউনিয়নে বইছে ভোটের হাওয়া

ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্তর্গত বহু দেশে ভ্যাকসিন-বিরোধী মিছিল

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২১, ১২.৪০ পিএম
  • ১৩ বার পঠিত

কোভিডের ভরকেন্দ্র ইউরোপ। রাশিয়া, জার্মানি, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়ামের পরিস্থিতি সবচেয়ে খারাপ। নতুন করে করোনা-বিধি জারি করছে বেশির ভাগ দেশের সরকার। যাঁরা টিকা নেননি এখনও, তাঁদের জন্য ‘লকডাউন’ জারির কথা ভাবছে প্রশাসন। অর্থাৎ টিকা নেওয়া না থাকলে গৃহবন্দি থাকতে হবে। নতুন করে নিয়মের বেড়ায় বাঁধা পড়ার খবর শুনেই ক্ষুব্ধ ইউরোপীয়দের একাংশ। সরকারি নতুন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে ব্রাসেলসের রাস্তায় নেমেছেন হাজার হাজার মানুষ।

কমপক্ষে ৩৫ হাজার লোক ভিড় করেছিলেন সেন্ট্রাল ব্রাসেলসে। বেশির ভাগের মুখেই মাস্ক ছিল না। দূরত্ব-বিধির তো প্রশ্নই নেই। দিনভর বিক্ষোভ দেখানোর পরে তাঁদের অনেকেই বাড়ির দিকে রওনা হয়ে গিয়েছিলেন। এ সময়ে আচমকাই হিংসার চেহারা নেয় বিক্ষোভ। পুলিশ জানিয়েছে, কয়েকশো বিক্ষোভকারী পুলিশকে নিশানা করে পাথর ছুড়তে শুরু করেন। গাড়ি ভাঙচুর করেন। আবর্জনা ফেলার জায়গাগুলিতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। কিছু জায়গায় জলকামান দাগা হয়। পুলিশের এক আধিকারিক বলেন, ‘‘আমাদের অনেকে জখম হয়েছেন। ঠিক কত জন, তা বলা সম্ভব নয়।’’ বিক্ষোভকারীদের অনেককে আটক করা হয়েছে। আটকের সংখ্যাও সঠিক জানাতে পারেননি ওই আধিকারিক।

ইউরোপের বেশির ভাগ দেশেই ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ টিকাকরণ সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু অস্ট্রিয়া, বেলজিয়ামের মতো কিছু দেশ পিছিয়ে রয়েছে। টিকার অভাব নয়, দেশবাসীর একাংশের অনিচ্ছার জন্য টিকাকরণ থমকে রয়েছে এ সব অঞ্চলে। সরকার এত দিন কোভিড টিকা নেওয়া আবশ্যিক ঘোষণা করেনি। কিন্তু বর্তমান অবস্থায় টিকা নেওয়ায় জোর দিচ্ছে প্রশাসন। এ দিনের বিক্ষোভের কারণ ছিল এটাই। বিক্ষোভকারীদের অন্যতম অভিযোগ, টিকাকরণ বাধ্যতামূলক করতে পারে না সরকার। ‘স্বাধীনতা চাই’ স্লোগান তোলেন তাঁরা। ফ্যাসিবাদ-বিরোধী গান ‘বেলা চাও’ গাইতে শোনা যায় অনেককে। বিক্ষোভকারীদের হাতে ছিল বিশাল ব্যানার। তাতে লেখা— ‘সকলের একসঙ্গে স্বাধীনতা চাই’। তাঁরা ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদর দফতরের সামনে মিছিল করে একত্রিত হন। কট্টরপন্থী রাজনৈতিক দল থেকে এলজিবিটি কমিউনিটি, সকলেই পতাকা হাতে যোগ দেন।

গত কয়েক সপ্তাহে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্তর্গত বহু দেশে ভ্যাকসিন-বিরোধী মিছিল হয়েছে। শনিবার নেদারল্যান্ডসের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ চলেছিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) সম্প্রতি জানিয়েছে, এই মহাদেশ এখন কোভিডের হটস্পট হয়ে রয়েছে। তার মধ্যে এ ধরনের বিক্ষোভ আরও সংক্রমণ বাড়াবে বলে আশঙ্কা প্রশাসনের। ইউক্রেন, রাশিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র, স্লোভাকিয়ার মতো দেশেও হাসপাতালে শয্যা ফাঁকা নেই। চিকিৎসা ব্যবস্থা বেহাল। রাষ্ট্রপুঞ্জের আশঙ্কা, এই শীতে আরও কয়েক লক্ষ প্রাণহানি ঘটবে ইউরোপে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazsongbadsara1
© All rights reserved  2019 songbadsarakkhon
Theme Download From ThemesBazar.Com