মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৩:৪৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
শিল্পীদের স্বার্থে কাজ করাই আমার লক্ষ্য – ডিপজল ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ২৩ দফা নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করেছেন মেয়র প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু তালতলীতে ভোক্তা অধিকারের অভিযানে তিন ব্যবসা প্রতিস্ঠানকে জরিমানা বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত মালয়েশিয়ার কাজাংয়ে যাত্রীবাহী ট্রেনের ধাক্কায় ৩ বাংলাদেশি নিহত নাইকো দুর্নীতি মামলায় খালেদাসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য গ্রহণ ৫০ লাখ পরিবারকে দেড় লাখ টন চাল সাশ্রয়ী মূল্যে দেয়া হবে : খাদ্যমন্ত্রী অপরাধ মোকাবেলায় বিজিবিকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে সজ্জিত করা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর অফিসে কর্মরত নজরুল ইসলামের পিতা আলহাজ্ব নাজিম উদ্দিন আর নেই। ২৫ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় জামিন পেলেন ড. ইউনূস

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে নারী পর্যটকদের জন্য আলাদাভাবে চালু হলো বিশেষ এলাকা

  • আপডেট সময় বুধবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২১, ১১.১৫ পিএম
  • ২২১ বার পড়া হয়েছে

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে নারী পর্যটকদের জন্য আলাদাভাবে চালু হলো ‘বিশেষ এলাকা’। আজ দুপুরে সংরক্ষিত এই বিশেষ এলাকাটি উদ্বোধন করেছেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ।

উক্ত ‘বিশেষ এলাকা’ টিতে নারী পর্যটকদের জন্য রয়েছে আলাদা ড্রেসিং রুম ও লকার রুম। কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে আসা নারী পর্যটকরা যাদের ইচ্ছা বা স্বেচ্ছায় ওই ‘বিশেষ এলাকা’য় প্রবেশ করতে পারবেন। এজন্য ১০০ থেকে ১৫০ গজ এলাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

উদ্বোধন শেষে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, ‘কক্সবাজার পর্যটন এলাকা নারীবান্ধব করার জন্য সৈকতে নারীদের জন্য ‘বিশেষ এলাকা’ ঘোষণা করা হল। এতে নারী পর্যটকরা স্বাচ্ছন্দে সৈকত ভ্রমণ করতে পারবেন। সৈকতে নারীদের নিয়ে যারা কাজ করেন, তাদের বড় একটি অংশে নারীদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ট্যুরিস্ট পুলিশের মধ্যেও নারী পুলিশ রয়েছে।

মো. মামুনুর রশীদ আরও জানান, হোটেল বা গেস্ট হাউজে যেন পর্যটকরা নিরাপদে থাকতে পারেন, এ ব্যাপারেও তারা ব্যবস্থা নিয়েছেন। মালিক ও পরিচালকদের সঙ্গে তারা বৈঠক করেছেন। হোটেল কর্মীদের এসব ব্যাপারে প্রশিক্ষণ ও সচেতন হওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এ সময় নারী পর্যটকদের জন্য আলাদা বিশেষ জোন করার বিষয়ে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘সৈকতে বেশি ঝুঁকিতে থাকে নারী ও শিশুরা। এবার সেই ঝুঁকি কমবে। পর্যটকদের জন্য আগে থেকেই কাজ করছি। জনবল কম হলেও আমরা পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ করে যাব।

ট্যুর অপারেটর অ্যাসেসিয়েশনের (টুয়াক) সভাপতি আনোয়ার কামাল বলেন, ‘সার্বিক নিরাপত্তা যেমন প্রয়োজন তেমনি আলাদা জোনেরও দরকার আছে। কারণ অনেকেই একটু আলাদা করে সমুদ্র স্নান করতে চায় তাদের জন্য এ জোন। নারী ও শিশুর সুরক্ষা নিরাপত্তা দুটিই এখানে বাস্তবায়ন করা হতে পারে।’

এদিকে, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত ভ্রমণের জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাত দফা নির্দেশনা দিয়েছেন। কক্সবাজারে স্বামী-সন্তান নিয়ে বেড়াতে আসা নারী পর্যটক ধর্ষণের ঘটনার পর থেকে নারী পর্যটকদের নিরাপত্তায় তৎপর হয়ে ওঠে সংশ্লিষ্টরা।

জেলা প্রশাসক কার্যালয় দেওয়া নির্দেশনায় রয়েছে-

১। সব আবাসিক হোটেলে রুম বুকিং করার সময় জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন ও জমা দিতে হবে।

২। আবাসিক হোটেলগুলোয় একটি অভিন্ন আদর্শ কর্মপদ্ধতি প্রণয়ন করতে হবে।

৩। প্রতিটি হোটেলে কক্ষ সংখ্যা, মূল্য তালিকা ও খালি কক্ষের সংখ্যা, রেস্তোরাঁয় খাবারের মূল্য তালিকা প্রকাশ্যে প্রদর্শন করতে হবে।

৪। প্রতিটি আবাসিক হোটেলে নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা চালু করতে অথবা জোরদার করতে হবে।

৫। শহর এলাকায় বসবাসকারী স্থানীয় বাসিন্দাদের কক্ষ ভাড়া দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

৬। হোটেল-মোটেল বা গেস্ট হাউজের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষিত হতে হবে।

৭। সব হোটেল-রেস্তোরাঁর নিবন্ধন করতে হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

themesbazsongbadsara1
© All rights reserved © 2022 songbadsarakkhon.com
Theme Download From ThemesBazar.Com