বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:৪২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
বরগুনায় প্রতিবন্ধী স্কুলের শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্বারকলিপি প্রদান নওগাঁর রাণীনগরে বিদ্যালয়ের তালা ভেঙ্গে অফিস কক্ষে প্রবেশের অভিযোগ শিক্ষকদের বিরুদ্ধে সরকারের ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি ১২টি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে আগামী ১৬ জানুয়ারি ৬১টি পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বরগুনায় বিশ্ব এইডস দিবস উপলক্ষে র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্টিত স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘মায়াজাল’ গত ২৪ ঘন্টায় দেশে ২১৯৮ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত বিএনপি দুর্নীতিবাজদের দলে প্রশ্রয় দেয় :বিএনপি ইরানে শ্রদ্ধাভরে সম্পন্ন হল ড:মোহসেন ফাখরিজাদের জানাজা অনুষ্ঠান করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তিদের ফুসফুসের ক্ষতি হতে পারে

পদ্মা সেতুর ১ ও ২ নম্বর পিলারে ৩৮তম স্প্যান, আর ৩টা বাকি

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২০, ৫.৫৬ পিএম
  • ১১ বার পঠিত

মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মাসেতুর ১ ও ২ নম্বর পিলারের উপর ৩৮তম স্প্যান বসানো হয়েছে। আজ শনিবার দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে স্প্যানটি সফলভাবে বসানো হয়েছে। এতে দৃশ্যমান হলো সেতুর পাঁচ হাজার ৭০০ মিটার। আর বাকি থাকল সেতুর আর মাত্র তিনটি স্প্যান।এর আগে গত ৬ নভেম্বর ৩৬তম এবং ১২ নভেম্বর সেতুর ৩৭তম স্প্যান বসানো হয়।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের বলেন, ‘স্প্যানটি গত ১৬ নভেম্বর বসানোর কথা ছিল। কিন্তু নির্ধারিত পিলারে দুটির একটি ডাঙায় এবং অপরটি নদীতে থাকায় ড্রেজিং করে পিলারে দুটির মাঝের স্থানটি স্প্যানবাহী ভাসমান ক্রেনের চলাচলের উপযোগী করতে হয়েছে। এরপর কারিগরি অন্য বিষয় প্রস্তত করতে আরো কয়েকদিন সময় লেগে যায়।

নির্বাহী প্রকৌশলী আরো বলেন, ‘আজ সকাল ৯টার দিকে কুমারভাগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ৩৮তম স্প্যানটি নিয়ে নির্ধারিত   পিলারের উদ্দেশে রওনা হয়।

ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ হওয়ার পর আগামী ২০২১ সালেই খুলে দেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazsongbadsara1
© All rights reserved  2019 songbadsarakkhon
Theme Download From ThemesBazar.Com